বাংলাদেশ ইস্পাত ও প্রকৌশল কর্পোরেশন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৫ জুলাই ২০১৮

বিএসইসি'র নিয়ন্ত্রণাধীন বন্ধ শিল্প প্রতিষ্ঠান ঢাকা স্টীল ওর্য়াকস লিমিটেড, টঙ্গী, গাজীপুর পুনঃচালুকরণ র্কাযক্রমের শুভ উদ্বোধন। বিস্তারিত...


প্রকাশন তারিখ : 2018-07-05

মাননীয় শিল্পমন্ত্রী জনাব আমীর হোসেন আমু এমপি ০৫ জুলাই ২০১৮ রোজ বৃহস্পতিবার ১৯৯৪ সালে বন্ধ হয়ে যাওয়া রি-রোলিং মিল ঢাকা স্টীল ওয়ার্কস লিমিটেড, টঙ্গী, গাজীপুর পুনঃচালুকরণ কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন ঘোষনা করেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্বাচনী ইস্তেহারে বন্ধ শিল্প কারখানা পুনরায় চালুর ঘোষণা দিয়েছিলেন। এটি বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে মাননীয় শিল্পমন্ত্রী’র নির্দেশনা এবং পরামর্শ মোতাবেক বাংলাদেশ ইস্পাত ও প্রকৌশল করপোরেশন অধীন ঢাকা স্টীল ওয়ার্কস লিঃ পুনরায়চালুর সিদ্ধান্ত নেয়াহয়। পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র, ফায়ার লাইসেন্স, বিদ্যুৎ লাইসেন্সিং বোর্ডের ছাড়পত্রসহ প্রতিষ্ঠানটি চালুর জন্য প্রয়োজনীয় কাগজ পত্র হালনাগাদ করা হয়।

ব্যক্তি মালিকানাধীন প্রাইভেট লিঃ কোম্পানীটি ২৫ মে ১৯৭০ সালে পাবলিক লিঃ কোম্পানীতে রূপান্তরিত হয়। স্বাধীনতার পর পিও- ১৬/১৯৭২ বলে এটি পরিত্যাক্ত ঘোষনা করা হয় এবং পিও ২৭/৭২ বলে জাতীয়করণ করতঃ উহা পরিচালনার জন্য বিএসইসি’র অধীনে ন্যস্ত করা হয়। চালু অবস্থায় প্রতিষ্ঠানটির তিনটি শিল্প ইউনিট ছিল। ইউনিটসমূহে এম এস রড ও এ্যাঙ্গেল, সিআই (কাষ্ট আয়রন) প্রোডাক্ট এবং এনামেলের তৈজষপত্র উৎপাদিত হতো।

রাষ্ট্রীয় খাতে একমাত্র ষ্টীল রি-রোলিং মিল চালু হওয়ায় বর্তমানে এ প্রতিষ্ঠানে ২৫ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ ভবিষ্যতে শত শত লোকের এবং পরোক্ষভাবে কয়েক হাজার লোকের কর্মসংস্থান হবে। উল্লেখ্য যে, জনবল নিয়োগের ক্ষেত্রে নারীর ক্ষমতায়নের বিষয়টিকে অগ্রাধিকার দিয়ে উক্ত প্রতিষ্ঠানে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক নারী শ্রমিক নিয়োগের পরিকল্পনা রয়েছে। উৎপাদন চালু করার পর প্রতিষ্ঠানটিকে লাভজনকভাবে পরিচালনার জন্য ইতোমধ্যে বিভিন্ন পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে এম.এস. রডের বাজার মূল্যের সাথে সংগতি রেখে দাম নির্ধারণ করা, কমিশন ভিত্তিক ডিলার-ডিস্ট্রিবিউটর নিয়োগের মাধ্যমে বিক্রয় বৃদ্ধি করা, দক্ষ ও প্রশিক্ষিত জনবল দ্বারা কারখানা পরিচালনা করা, অতিদ্রুত ঢাকা স্টীল ওয়ার্কস লিঃ’র সেমি অটোমেটিক কারখানাটি চালু করার ব্যবস্থা করা এবং বিভিন্ন জেলায় প্রতিষ্ঠানের বিক্রয় কেন্দ্র স্থাপন করা। এছাড়াও, ভবিষ্যতে প্রতিষ্ঠানের পণ্য বহুমুখীকরণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে এবং এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে পেরেক, স্ক্রু, তারকাটা, কাঁটাতার, নাট-বোল্টু, দরজার ছিটকিনি ইত্যাদি বহুমুখী পণ্য বিদ্যমান মেশিনারীজ ব্যবহার করে তৈরি করা সম্ভব হবে।

উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব মোঃ জাহিদ আহ্সান রাসেল, মাননীয় এমপি, গাজীপুর-০২, অ্যাডভোকেট মো: আজমত উল্লা খান, কার্যকরী সদস্য, কেন্দ্রীয় কমিটি, বাংলাদশ আওয়ামী লীগ ও সভাপতি, মহানগর আওয়ামী লীগ-গাজীপুর এবং অ্যাডভোকেটমো: জাহাঙ্গীর আলম, সাধারণ সম্পাদক, মহানগর আওয়ামী লীগ, গাজীপুর ও নবনির্বাচিত মেয়র, গাজীপুর সিটি করপোরেশন, গাজীপুর। উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শিল্প মন্ত্রণালয়ের সচিব জনাব মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ্। স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিএসইসি’র চেয়ারম্যন জনাব মিজানুর রহমান। উক্ত উদ্বোধন অনুষ্ঠানে শিল্প মন্ত্রণালয় ও বিএসইসি’র  উর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এবং প্রিণ্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সম্মানিত সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


Share with :

Facebook Facebook